/

মেসোপটেমীয় সভ্যতা

জব স্টাডি নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিতঃ ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৬

 

20039_1315241480মেসোপটেমীয় সভ্যতা

  • পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতা।
  • ‘মেসোপটেমিয়া’ কথাটির অর্থ- দু’নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চল।
  • মেসোপটেমীয় সভ্যতা গড়ে উঠে- ইউফ্রেটিস ও টাইগ্রিস( ফোরাত ও দজলা) নদীর তীরে।
  • মেসোপটেমিয়া বর্তমান সময়ের যে অঞ্চল- ইরাক ও সিরিয়া।
  • সেচ নির্ভর প্রাচীন সভ্যতা- মেসোপটেমিয়া।
  • ইরাক দেশের পূর্বনাম- মেসোপটেমিয়া।
  • মেসোপটেমিয়া সভ্যতার পর্যায় ছিল- ৪টি। যথা: সুমেরীয়, ব্যাবলনীয়, অ্যাশেরীয় ও ক্যালেডীয় সভ্যতা।
summerian-egyptian-exampleসুমেরীয় সভ্যতা
• সুমেরীয় সভ্যতার গোড়া পত্তন হয় কবে? – খ্রিষ্টপূর্ব ৪০০০ থেকে ৩০০০ অব্দে।
 • সুমেরীয় সভ্যতার সাথে কোন নদী দুটি জড়িত? – ইউফ্রেটিস ও টাইগ্রিস নদী
 • সুমেরীয় সভ্যতার অপর নাম কি? – মেসোপটেমিয়া সভ্যতা
 • মেসোপটেমিয়া বর্তমান কোন অঞ্চলের অন্তর্গত? – ইরাক ও সিরিয়া
 • সুমেরীয়দেও সবচেয়ে বড় অবদান কি কি? – চাকা, লিখন পদ্ধতি ও চাষ পদ্ধতি আবিষ্কার
 • লুগাস কি ? – সুমেরীয় রাজার পদবী
 • কিউনিফর্ম কি? – সুমেরীয়দের আবিষ্কৃত প্রথম লিপি
 • কিউনিফর্ম লিপিতে কোন মহাকাব্য রচিত? – গিলগামেশ।
 • পাটি গণিতের গুন পদ্ধতি আবিষ্কার করেন।
ব্যাবিলনীয় সভ্যতা 
ব্যাবলনীয় সভ্যতার স্বর্ণযুগ বলা হয়- হাম্মুরাবির শাসনামলকে। 
• সর্বপ্রথম পঞ্জিকা প্রচলন হয়- ব্যাবলনীয় সভ্যতায়। 
• পৃথিবীর প্রথম লিখিত আইনের প্রচলন হয়- ব্যাবিলনে।
অ্যাশেরীয় সভ্যতা
• বৃত্তকে ৩৬০ডিগ্রি কোণে ভাগ করেন। 
• সর্বপ্রথম পৃথিবীকে অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশে ভাগ করেছিল। 
• যুদ্ধে লোহার অস্ত্র ব্যবহার করে। 

ক্যালেডীয় সভ্যতা 
• ব্যাবিলনের শূন্য উদ্যান তৈরি করা ছিল ক্যালেডীয়দের বড় অবদান। 
• ৭দিনে সপ্তাহ গণনা শুরু করেন- ক্যালেডীয়রা। 
• প্রতিদিনকে ১২ জোড়া ঘন্টায় ভাগ করার পদ্ধতি বের করে- ক্যালেডীয়রা।