/

প্রয়োগ-অপপ্রয়োগ, বানান ও বাক্য শুদ্ধি

মো: রুকুনুজ্জামান রাসেল

প্রকাশিতঃ ৩:৪৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৯, ২০১৭

৩৮তম বিসিএস প্রিলি প্রস্তুতিকে বেগবান করার লক্ষ্যে আমরা বাংলা ব্যাকরণের ধারাবাহিক লেখা প্রকাশ করবো ইনশাল্লাহ। বাংলা ব্যাকরণের ধারাবাহিকের এটি হচ্ছে আমাদের প্রথম কিস্তি। বাংলা ব্যাকরণের ১৫ নম্বরের প্রস্তুতির জন্য আমাদের সঙ্গেই থাকুন।

 

প্রয়োগ-অপপ্রয়োগ

১।বহুবচনের অপপ্রয়োগজনিত ভুল: আমরা অনেক সময় অশুদ্ধভাবে বহুবচনের দ্বিত্ব ব্যবহার করি। যেমন-

অপপ্রয়োগ: সার্কভুক্ত অন্যান্য দেশগুলো।

শুদ্ধ প্রয়োগ: সার্কভুক্ত অন্যান্য দেশ অথবা, সার্কভুক্ত অন্য দেশগুলো।

অপপ্রয়োগ: অনেক ছাত্রগণ

শুদ্ধ প্রয়োগ: অনেক ছাত্র।

অপপ্রয়োগ: সকল দর্শকমণ্ডলী।

শুদ্ধ প্রয়োগ: সকল দর্শক অথবা দর্শকমণ্ডলী।

বি: দ্র: মনে রাখুন বহুবচনের পর দ্বিত্ব প্রয়োগ হয় না।

 

২। শব্দের অপপ্রয়োগজনিত ভুল: আমরা প্রায় শব্দের অপপ্রয়োজনিত ভুল করে থাকি। যেমন-

অশ্রুজল: অশ্রু অর্থই চোখের জল। তাই অশ্রুজল ব্যবহার ভুল।

আয়ত্তাধীন: আয়ত্ত শব্দের অর্থই অধীন। তাই আয়ত্তের পর অধীন ব্যবহার বাহুল্য।

জন্মবার্ষিকী: জন্মবার্ষিক শব্দই যথেষ্ট। এক্ষেত্রে স্ত্রী প্রত্যয় যোগ বহুল প্রচলিত হলেও তা অশুদ্ধ।

ভাষাভাষী: ভাষা ব্যবহারকারী অর্থে ভাষীই যথার্থ ও যথেষ্ট। ভাষাভাষী প্রয়োগ অশুদ্ধ।

 

৩। শব্দের বানানগত অশুদ্ধি/অপপ্রয়োগ: বানানরীতি সম্পর্কে অজ্ঞতার ফলে শব্দের বানান-বিভ্রান্তি ঘটে থাকে।

অশুদ্ধ: অপেক্ষমান

শুদ্ধ: অপেক্ষমাণ

অশুদ্ধ: প্রাণীবিদ্যা

শুদ্ধ: প্রাণিবিদ্যা

অশুদ্ধ: উল্লেখিত

শুদ্ধ: উল্লিখিত

অশুদ্ধ: মন্ত্রীসভা

শুদ্ধ: মন্ত্রিসভা

অশুদ্ধ: শিরচ্ছেদ

শুদ্ধ: শিরশ্ছেদ

 

৪। শব্দের গঠনগত অপপ্রয়োগ: শব্দের গঠনরীতি সম্পর্কে অজ্ঞতার ফলে শব্দ ব্যবহারে বিভ্রান্তি ঘটে থাকে।  যেমন-

অশুদ্ধ: অর্ধাঙ্গিনী

শুদ্ধ: অর্ধাঙ্গী

অশুদ্ধ: কর্তাগণ

শুদ্ধ: কর্তৃগণ

অশুদ্ধ: সম্ভব

শুদ্ধ: সম্ভবপর

অশুদ্ধ: ইতিমধ্যে

শুদ্ধ: ইতোমধ্যে

অশুদ্ধ: একত্রিত

শুদ্ধ: একত্র

অশুদ্ধ: চলমান

শুদ্ধ: চলন্ত।

 

৫। প্রায় সমোচ্চারিত শব্দের বানান: শব্দের সঠিক অর্থ সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান না থাকার কারণেও প্রয়োগ বিভ্রান্তি ঘটে থাকে।  যেমন-

অণু: বস্তুর ক্ষুদ্রতম ক্ষুদ্রতম অংশ

অনু: পশ্চাৎ

অশ্ব: ঘোড়া

অশ্ম: পাথর

ছাড়: ত্যাগ

ছার: তুচ্ছ

দীপ: প্রদীপ

দ্বিপ: হাতি

ভাষা: কথা

ভাসা: জল বা বায়ুর উপর ভর করে থাকা

 

বানান শুদ্ধি

ক) বস্তুবাচক শব্দ ও প্রাণিবাচক অ-তৎসম শব্দের শেষে ই-কার (ি) হবে। যেমন-

বস্তুবাচক শব্দ: বাড়ি, গাড়ি  ইত্যাদি।

প্রাণিবাচক শব্দ: পাখি, হাতি ইত্যাদি।

 

খ) দেশ, জাতি ও ভাষার নাম লিখতে সর্বদা ই-কার হবে।

দেশ: জার্মানি, চিলি, হাইতি ইত্যাদি।

জাতি: বাঙালি, জাপানি ইত্যাদি।

ভাষা: ইংরেজি, হিন্দি, আরবি ইত্যাদি।

 

গ) –ইনী, -ঈ, -ঈয়সী, -নী, -বতী, -মতী, -ময়ী অন্ত্য প্রত্যয়যুক্ত স্ত্রীবাচক শব্দের শেষে সর্বদা ঈ-কার (ী) হবে। যেমন- মনোহারিণী, গরীয়সী, যুবতী, গণবতী, জননী, নারী ইত্যাদি।

 

ঘ) বিদেশী শব্দের বানান বাংলায় লেখার সময় ‘ষ’ ও ‘ণ’ না হয়ে ‘স’ ও ‘ন’ হবে।

অশুদ্ধ: ষ্টেশন

শুদ্ধ: স্টেশন

অশুদ্ধ: ফটোষ্ট্যাট

শুদ্ধ: ফটোস্ট্যাট

অশুদ্ধ: কর্ণেল

শুদ্ধ: কর্নেল

 

ঙ) বানানে যে বর্ণের উপর রেফ থাকবে, সেই বর্ণে দ্বিত্ব হবে না। যেমন-

অশুদ্ধ: ধর্ম্মসভা

শুদ্ধ: ধর্মসভা

অশুদ্ধ: পর্ব্বত

শুদ্ধ: পর্বত।

 

চ) বিশেষণবাচক ‘আলি’ প্রত্যয়যুক্ত শব্দে ই-কার হবে।

অশুদ্ধ: বর্ণালী

শুদ্ধ: বর্ণালি

অশুদ্ধ: রূপালী

শুদ্ধ: রুপালি

 

 

বাক্য শুদ্ধি

অশুদ্ধ: দৈন্য সর্বদা মহত্বের পরিচায়ক নয়।

শুদ্ধ: দৈন্য সর্বদা  মহত্ত্বের পরিচায়ক নয়।

অশুদ্ধ: আমি সাক্ষী দিয়েছি।

শুদ্ধ: আমি সাক্ষ্য দিয়েছি।

অশুদ্ধ: অধ্যায়ন ছাত্রদের তপস্যা।

শুদ্ধ: অধ্যয়নই ছাত্রদের তপস্যা।

অশুদ্ধ: তাহার জীবন সংশয়ময় ।

শুদ্ধ: তাহার জীবন সংশয়াপূর্ণ ।

অশুদ্ধ: আমি অপমান হয়েছি।

শুদ্ধ: আমি অপমানিত হয়েছি।

অশুদ্ধ: একটা গোপন কথা বলি

শুদ্ধ: একটা গোপনীয় কথা বলি।

অশুদ্ধ: তার দারিদ্রতা অসহনীয়

শুদ্ধ: তার দারিদ্র্য অসহনীয়/ তার দরিদ্রতা অসহনীয়

অশুদ্ধ: এ কথা প্রমাণ হয়েছে।

শুদ্ধ: এ কথা প্রমাণিত হয়েছে।

অশুদ্ধ: আমি অপমান হয়েছি।

শুদ্ধ: আমি অপমানিত হয়েছি।

অশুদ্ধ: সর্ববিষয়ে বাহুল্যতা বর্জন কর।

শুদ্ধ: সব বিষয়ে বাহুল্য বর্জন কর।

অশুদ্ধ: তার সৌজন্যতা ভুলতে পারব না।

শুদ্ধ: তার সৌজন্য ভুলতে পারব না।

অশুদ্ধ: সে বড় দুরাবস্থায় পড়েছে

শুদ্ধ: সে বড় দুরবস্থায় পড়েছে।

অশুদ্ধ: বাংলা ব্যাকরণ অত্যান্ত জটিল

শুদ্ধ: বাংলা ব্যাকরণ অত্যন্ত জটিল।

অশুদ্ধ: লেখাপড়ায় তার মনযোগ নেই।

শুদ্ধ: লেখাপড়ায় তার মনোযোগ নেই।

অশুদ্ধ: আজকের সন্ধ্যা মনমুগ্ধকর

শুদ্ধ: আজকের সন্ধ্যা বড়ই মনোমুদ্ধকর।

অশুদ্ধ: অন্নাভাবে প্রতি ঘরে ঘরে হাহাকার।

শুদ্ধ: অন্নাভাবে ঘরে ঘরে হাহাকার।

অশুদ্ধ: সকল সভ্যগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

শুদ্ধ: সকল সভ্য সভায় উপস্থিত ছিলেন।

অশুদ্ধ: তারা সকলেই এলো।

শুদ্ধ: তারা এলো/ সকলেই এলো।

অশুদ্ধ: বৃক্ষটি সমূলসহ উৎপাটিত হয়েছে।

শুদ্ধ: বৃক্ষটি সমূলে উৎপাটিত হয়েছে।

অশুদ্ধ: এ কাজটি আমার পক্ষে সম্ভব নহে।

শুদ্ধ: এ কাজটি করা আমার পক্ষে নম্ভব নয়।

অশুদ্ধ: এ কাজে তাহার হস্ত পাকা।

শুদ্ধ: এ কাজে তার হাত পাকা।

অশুদ্ধ: অরন্য জনপদে একটি চমৎকার পুস্তক।

শুদ্ধ: ‘অরণ্য জনপদে’ একটি চমৎকার পুস্তক।

অশুদ্ধ: ঝর্ণা, ঝর্ণা সুন্দরী ঝর্ণা।

শুদ্ধ: ঝরণা ঝরনা সুন্দরী ঝরনা।

অশুদ্ধ: এটি একটি মহৎ আবিস্কার।

শুদ্ধ: এটি একটি মহৎ আবিষ্কার।

অশুদ্ধ: তাদের যথোচিত পুরষ্কার দাও।

শুদ্ধ: তাদের যথোচিত পুরস্কার দাও।

অশুদ্ধ: কস্ট অর্থ ক্লেস।

শুদ্ধ: কষ্ট অর্থ ক্লেশ।

­­­­অশুদ্ধ: আমি সাক্ষী দিয়েছি।

শুদ্ধ: আমি সাক্ষ্য দিয়েছি।

অশুদ্ধ: মহারাজ সভাগৃহে প্রবেশ করলেন।

শুদ্ধ: মহারাজ সভাকক্ষে প্রবেশ করলেন।

অশুদ্ধ: সে সঙ্কট অবস্থায় পড়েছে।

শুদ্ধ: সে সঙ্কটে পড়েছে।

অশুদ্ধ: তিনি আরোগ্য হয়েছেন।

শুদ্ধ: তিনি আরোগ্য লাভ করেছেন।

অশুদ্ধ: তারা শব পোড়াতে গেল।

শুদ্ধ: তারা শবদাহ করতে গেল।

অশুদ্ধ: দরিদ্র আমাদের দেশের একটি অভিশাপ।

শুদ্ধ: দারিদ্র্য আমাদের দেশের একটি অভিশাপ।

 

 

বিগত সালের প্রশ্নপত্র:

 

০১. কোন বাক্যটি শুদ্ধ? (২৫তম বিসিএস)

ক. তাহার জীবন সংশয়পূর্ন

খ. তাহার জীবন সংশয়ভরা

গ. তাহার জীবন সংশয়াপূর্ণ

ঘ. তাহার জীবন সংশয়ময়

উত্তর- গ

 

০২. শুদ্ধ বাক্যটি চিহ্নিত করুন- (১২তম বিসিএস)

ক. বিদ্যান বক্তিগণ দরিদ্রের শিকার হন

খ. বিদ্যান বক্তিগণ দরিদ্রেতার স্বীকার হন

গ. বিদ্যান বক্তিগণ দারিদ্র্যের শিকার হন

ঘ. বিদ্যান বক্তিগণ দারিদ্রেতার স্বীকার হন

উত্তর- গ.

 

০৩. কোনটি শুদ্ধ বাক্য? ১১ তম বিসিএস)

ক. একটা গোপনীয় কথা বলি

খ. একটি গোপণ কথা বলি

গ. একটি গোপন কথা বলি

ঘ. একটি গুপ্ত কথা বলি

উত্তর- ক.

 

০৪. শুদ্ধ বাক্য কোনটি? (১১ তম বিসিএস)

ক. দুর্বলবশত অনাথিনী বসে পড়ল

খ. দুর্বলতাবশত অনাথা বসে পড়ল

গ. দুর্বলতাবশতঃ অনাথিনী বসে পড়ল

ঘ. দুর্বলবশত অনাথা বসে পড়ল

উত্তর- খ.

 

০৫. কোনটি শুদ্ধ বাক্য? (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপপরিদর্শক ২০১৩)

ক. দারিদ্র্য বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা

খ. দারিদ্র্যতা বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা

গ. দারিদ্রতা বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা

ঘ. দরিদ্র্য বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা

উত্তর- ক.

 

০৬. কোন বাক্যটি শুদ্ধ তা নির্দেশ করুন

ক. কীর্তিবাস বাঙলা রামায়ন লিখিয়াছেন

খ. কীর্তিবাস বাংলা রামায়ন লিখিয়াছেন

গ. কৃত্তিবাস বাঙলা রামায়ণ লিখিয়াছেন

ঘ. কৃত্তিবাস বাংলা রামায়ণ লিখিয়াছেন

উত্তর- ঘ

 

৭. শুদ্ধ বাক্যটি নির্ণয় করুন

ক. দারিদ্র্য আমাদের প্রধান সমস্যা

খ. দারিদ্র্যতা আমাদের প্রধান সমস্যা

গ. দরিদ্রতা আমাদের প্রধান সমস্যা

ঘ. দারিদ্র্যতাই প্রধান সমস্যা

উত্তর- খ.

 

৮. শুদ্ধ বাক্যটি নির্দেশ করুন

ক. আপনি সপরিবার আমন্ত্রিত

খ. আপনি স্বপরিবার আমন্ত্রিত

গ. আপনি সপরিবারে আমন্ত্রিত

ঘ. আপনি স্বপরিবারে আমন্ত্রিত

উত্তর- গ.

 

৯. শুদ্ধ রূপটি দেখান-

ক. সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

খ. সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

গ. সাহিত্য এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

ঘ. সাহিত্য ও সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

উত্তর- ক.

 

১০. শুদ্ধ বাক্যটি নির্দেশ করুন-

ক. বিরাট গরু-ছাগলের হাট

খ. বিরাট গরু ও বিরাট ছাগলের হাট

গ. বিরাট গবাদি পশুর হাট

ঘ. গরু-ছাগলের বিরাট হাট

উত্তর- ঘ

 

১০. শুদ্ধ বাক্যটি নির্দেশ করুন-

ক. দৈন্যতা প্রশংসানীয় নয়

খ. দীনতা প্রশংসনীয় নয়

গ. দৈন্যতা অপ্রশংসানীয়

ঘ. দৈন্যতা নিন্দনীয়

উত্তর- খ

 

১১. ‘বিদ্যান মুর্খ অপেক্ষা শ্রেষ্ঠতর” বাক্যটির শুদ্ধরূপ কোনটি?

ক. বিদ্যান মূর্খ অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ

খ. বিদ্বান মূর্খ অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ

গ. বিদ্বান মুর্খ অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ

ঘ.  বিদ্বান মুর্খ অপেক্ষা শ্রেষ্ঠতর

উত্তর- খ

 

১২. কোন বাক্যটি শুদ্ধ?

ক. ৫ জন ছাত্ররা স্কুলে যায়

খ. ৫ জন ছাত্রগণ স্কুলে যায়

গ. ৫ জন ছাত্র স্কুলে যায়

উত্তর- গ

 

১৩. কোন বাক্যটি শুদ্ধ?

ক. আমি সন্তোষ হলাম

খ. আমি সন্তুষ্ট হলাম

গ. আমি সন্তূষ্ট হলাম

ঘ. আমি সন্তোষ্ট হইলাম

উত্তর- খ

 

১৪. শুদ্ধ বাক্য কোনটি?

ক. দুর্বলবশত অনাথিনী বসে পড়ল

খ. দুর্বলতাবশত অনাথিনী বসে পড়ল

গ. দুর্বলবশত অনাথা বসে পড়ল

ঘ. দুর্বলতাবশত অনাথা বসে পড়ল

উত্তর- ঘ

 

১৫. কোন বাক্যটি শুদ্ধ?

ক. সর্বদা পরিস্কার থাকিবে

খ. সর্বদা পরিস্কৃত থাকিবে

গ. সর্বদা পরিস্কারময় থাকিবে

ঘ. সর্বদা পরিস্কৃতময় থাকিবে

ঙ. কোনোটিই নয়

উত্তর- ঙ

 

১৬. কোন বাক্যটি শুদ্ধ?

ক. তুমি কী ঢাকা যাবে?

খ. তুমি কি ঢাকা যাবে?

গ. তোমরা কী ঢাকা যাবে?

ঘ. তোমরা কী ঢাকায় যাবে?

ঙ. কোনটি নয়

উত্তর- খ

 

১৭. কোন বাক্যটি শুদ্ধ?

ক. রহিমা পাগল হয়ে গেছে

খ. রাহিমা পাগলি হয়ে গেছে

গ. রহিমা পাগলিনী হয়ে গেছে

ঘ. রহিমা পাগলী হয়ে গেছে

ঙ. কোনটি নয়

উত্তর- ক

 

১৮. সঠিক বাক্য কোনটি-

ক. মনোরম উদানে ভ্রমন দূরাকাঙ্খা

খ. মনরম উদ্যাণে ভ্রমন দুরাকাঙ্খা

গ. মনরম উদ্যাণে ভ্রমন দূরাকাংখা

ঘ.মনোরম উদ্যানে ভ্রমণ দূরাকাংখা

উত্তর: সঠিক উত্তর কোনোটিই নয়

 

১৯. নিচের কোন বাক্যটি সঠিক?

ক. আমি এ ঘটনা চাক্ষুস দেখেছি

খ. আমি এ ঘটনা চাক্ষুস প্রত্যক্ষ করেছি

গ. আমি এ ঘটনা স্বচক্ষে দেখেছি

ঘ. আমি এ ঘটনা স্বচক্ষে দেখিয়াছি

উত্তর- ক