/

স্বাস্থ্য নিয়ে কিছু কথা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিতঃ ৫:১৮ পূর্বাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭

 

আরিয়ান আহমেদ: যে স্বাস্থ্যের ওপর ভর দিয়ে এতো বাহাদুরি আমাদের সেদিকেই আমরা খোঁজ রাখিনা । স্বাস্থ্য নিয়ে আমাদের সবার খুব সতর্ক থাকা উচিত । এখন খুব অল্প বয়সে অনেক বাজে বাজে অসুখ হচ্ছে শুধু মাত্র নিজের স্বাস্থ্য নিয়ে অবহেলা আর অসচেতন থাকার জন্য । আমরা সবাই নানান কাজে এতই ব্যস্ত থাকি যে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে নিজের শারীরিক অবস্থা কি সেদিকে কোন পাত্তা নেই । বয়স বাড়ার সাথে সাথে প্রত্যেকের উচিত শরীরে কোন সমস্যা থাকুক আর নাই থাকুক নির্দিষ্ট সময় পরপর যেমন বছরে একবার হলেও শরীরটা চেক-আপ করানো যেমন কিছু টেস্ট করাতে পারেন ভাল কোন ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে । এতে করে আপনার শরীরে কোন বড় সমস্যা হওয়ার আগেই আপনি সেটার আভাস পাবেন আর সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে পারবেন । আমরা একমাত্র অসুস্থ হলেই তখন মনে হয় সব বৃথা । বড় কোন অপারেশন এর জন্য যখন কাউকে অপারেশন থিয়েটার এ নিয়ে যাওয়া হয় যেমন বাইপাস সার্জারি বা কিডনির অপারেশন বা ব্রেনের সার্জারি তখন যাওয়ার আগে তার সাথে কথা বললে বোঝা যায় সুস্থ শরীর ছাড়া সবই বৃথা । ইদানিং আমাদের খাদ্যাভাস ,পরিবেশের অতিমাত্রায় দূষণ , অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রা আর কম শারীরিক পরিশ্রমের কারনে অল্প বয়সেই হার্ট ডিজিজ, কিডনি ডিজিজ, লিভার ডিজিজ, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস ইত্যাদি হচ্ছে । শরীর যদি মারাত্মক অসুস্থ থাকে এবং শরীরে যদি দুনিয়ার সব রোগ বাসা বাঁধে তখন কোন কিছুই কিচ্ছুনা । শারীরিক pain এর চেয়ে বেশি কিচ্ছু নেই , এটা বোঝা যায় তখনই যখন যেকোনো ক্যান্সারে আক্রান্ত কোন রোগীর সাথে কথা বলা হয় ।

 

কিছু anti cancer and anti aging food এর list নিম্নে দেয়া হল –

১- লেবু
২- আমলকী
৩- কমলা
৪- মাল্টা
৫- জাম্বুরা
৬- green tea ( must without sugar )
৭- তরমুজ
৮- পাকা আম
৯- পাকা পেঁপে
১০- আঙ্গুর
১১- লাল টমেটো
১২- কালজাম
১৩- পালংশাক
১৪- স্ত্রবেরি
১৫- গাজর
১৬- কাঁচা পেঁয়াজ
১৭- রসুন
১৮- বাদাম
১৯- আখরোট
২০- ডালিম
২১- বাঁধাকপি
২২- শিমের বীজ
২৩- কালিজিরা
২৪- আদা
২৫- আমড়া
২৬- এভকেডো
২৭- আনারস

 

দৈনিক এসব খাবারের মধ্যে থেকে হাতের কাছে যেগুলো পাবেন খেয়ে নেবেন । দৈনিক ২৫-৩০ মিনিট হলেও জোরে হাঁটার অভ্যাস করুন বা দৌড়ান । Fat food কম খাওয়ার চেষ্টা করবেন । পারলে খাসির আর গরুর মাংস খাওয়ার অভ্যাস বয়স বাড়ার সাথে সাথে বাদ দিন । fast food কম খাওয়ার অভ্যাস করুন । পোড়া তেলে ভাজা যেকোনো কিছু খাওয়া থেকে বিরত থাকুন । ভাজা-পোড়া খাবারের চেয়ে সিদ্ধ খাবার সবসময় ভাল । Stomach কখনো খালি রাখবেন না । সকালে খালি পেটে ২ গ্লাস পানি খাবেন, খাওয়ার সময় কম পানি খাবেন, খাওয়ার আধা ঘণ্টা পর পানি খাওয়ার চেষ্টা করবেন । খাওয়ার পরপরই ঘুমোতে না যাওয়াই ভালো । দিনের বেলা না ঘুমানোর চেষ্টা করবেন । আগে স্বাস্থ্য পরে অন্য কিছু । অল্প বয়সেই ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপের, হার্ট ডিজিজ ইত্যাদি বাধিয়ে মুড়ির মত ওষুধ খাওয়ার কি দরকার, এর চেয়ে আগে থেকেই সতর্ক হওয়া ভালো নয়কি ?? যদিও জীবন-মৃত্যু স্রষ্টার হাতে কিন্তু স্বাস্থ্য সচেতন থাকতে তো দোষ নেই তাইনা ? ভালো থাকবেন , সুস্থ থাকবেন সবাই, good luck guys.

 

লেখক।

আরিয়ান আহমেদ

Assistant commisioner of taxes