/

যারা ৩৯,৪০ তম বিসিএস দিবেন, আজকের পোষ্ট’টি তাদের জন্যে কাজে আসবে।

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিতঃ ৮:০১ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৮

#বিসিএসের প্রস্তুতি এভাবে শুরু করতে পারেন :

যারা ৩৯,৪০ তম বি সি এস দিবেন, তাদের মোটামুটি ভাল একটা সময় আছে নিজেকে প্রস্তুত করার। ৩৮তম যারা দিচ্ছেন বিশেষ করে তাদের জন্য আজকের লেখাটা।

প্রথমেই যা করবেন তা হলো মানসিক প্রস্তুতি। আপনি নিজের সাথেই বোঝাপড়া করে নিন, আপনি কি চাচ্ছেন! কেবল প্রিলি, রিটেন আর ভাইভা পাশ নয় বরং আপনাকে ক্যাডার হতে হবে।

আর এজন্য সবার আগে ধৈর্য ধরতে শিখুন। দৃঢ় মনোবল, পরিশ্রম আর ধৈর্যই আপনাকে আপনার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে নিয়ে যাবে। ভাইবা পর্যন্ততো বটেই, বাকি জীবনেও এর তুলনা নেই।

আমি যে ভাবে প্রিলি প্রস্তুতি নিয়েছিলাম, সেটাই বলছি।প্রথমেই লেখা পড়ার পাশাপাশি কিছু অভ্যাস,আচরণ বা মনোভাব ধারণ করুন। তা হলো :

পজিটিভ থিংকিং।

পড়াশোনা,জানা এবং শেখা কে আনন্দের সাথে নিন।

আশে পাশে কিছু লোক থাকবে যাদের কাজই হচ্ছে ডিসকারেজ করা। ইগনৌর দেম।

নিয়মিত পত্রিকা পড়ুন। তবে দরকারি পয়েন্ট কেবল।

খুব পন্ডিত ব্যক্তির সাহচর্য আপনাকে হীনমন্যতায় ভোগাতে পারে,তাদের সঙ্গ ত্যাগ করুন।

আশেপাশে জ্ঞানী ব্যক্তির বলয় তৈরি করুন। আর জ্ঞান আহরণ করুন।

নিজেকে তথ্যের ঝর্ণা রূপে গড়ে তুলুন।

এ পৃথিবীতে সব ক্রিয়ারই সমান ও বিপরীত প্রতিক্রিয়া আছে। তাই ভাল চিন্তা করুন, ভাল উদ্দেশ্য রাখুন।

নিয়মিত সৃষ্টিকর্তার সাথে সমস্ত কিছু শেয়ার করুন। যদিও তিনি সবই জানেন।

এবার পড়াশোনার ক্ষেত্রে আমার নেয়া স্টেপ অনুযায়ী লিখছি :

#বাংলা_৩৫

★বাংলার জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিন বাংলা একাডেমি প্রণীত বানান রীতির উপর । প্রতিদিন ২/১ টা নিয়ম অনুশীলন করুন। দারুণ কাজে আসে।

★সিলেবাস ধরে সবগুলো টপিকস একবার পড়ুন। বুঝে বুঝে পড়ুন।

★প্রতিদিন নতুন নতুন কয়েকটা শব্দ বাংলা ও ইংরেজি প্রতিশব্দ,বিপরীত শব্দ সহ শিখুন। আপনার শব্দভাণ্ডার দ্রুত সমৃদ্ধ হবে।

★সন্ধি ও সমাসের ব্যতিক্রম কিংবা নতুন বেশ কয়েকটা উদাহারণ পড়ুন।

★প্রাচীন ও মধ্যযুগে পড়া কম। তাই ভালো করে পড়ে নিন। যাতে ঐ নম্বর গুলো সব পাওয়া যায়।একটু গভীরে গিয়ে পড়ুন।

★আধুনিক যুগের জন্য নবম দশম শ্রেণির এবং একাদশ শ্রেণির বোর্ড বইটা নিয়ে, দুটো বইয়ের সমস্ত লেখকের নামের তালিকা করে তাঁদের উল্লেখযোগ্য সাহিত্যকর্ম সম্পর্কে জেনে নিন।

★সম্ভব হলে একাদশের বইটার অনুশীলনীমূলক কাজগুলোও করুন।

★বাংলা একাডেমি ও একুশে পদকের সাম্প্রতিক তথ্য জানুন।

★মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উল্লেখযোগ্য সাহিত্য,বাংলা সাহিত্যর উল্লেখযোগ্য পত্রিকা ও সম্পাদকের নাম জেনে রাখুন।

★ রেফারেন্স বইগুলো পড়া শেষ হলে বেশ কয়েকটা মডেল টেস্ট দিন। মডেল টেস্ট দেয়ার সময় সময়ের প্রতি খেয়াল রাখুন।

সহায়ক গ্রন্থ :

★বোর্ড বই, বাংলা ১ম(৯ম-১০ম ও ১১শ-১২শ)

★বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস –মাহাবুবুল আলম

★লহরি -শামসুল আলম

★ভাষা শিক্ষা -ড.হায়াৎ মামুদ

★লাল নীল দীপাবলি -হুমায়ুন আজাদ

★কত নদী সরোবর –হুমায়ুন আজাদ

★যে কোন একটা গাইড বা ডাইজেস্ট

#ইংরেজি :৩৫

______________

★প্রতিদিন ইংরেজি পড়তে হবে। হোক তা একদম অল্প। ★ সাহিত্যের জন্যে ইংরেজি অনার্সের আর বি সি লিখিত ইংরেজি প্রফেশনালের সিলেবাসটা সংগ্রহ করে, লেখকদের লিস্ট করুন। এরপর তাঁদের গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্যকর্ম সম্পর্কে জানুন। শেক্সপীয়ারকে নিয়ে নোট করুন।

★ কিছু ক্ল্যাসিকাল বইয়ের নাম ও লেখকের নাম,বিতর্কিত বই ও লেখকের নাম জেনে নিন। ইন্টারনেটে পেয়ে যাবেন সহজেই।

★কিছু গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্যিক টার্ম সম্পর্কে জানতে হবে। ABC of English literature বইটিতে আছে।

★আগের বি সি এসের সব প্রশ্ন যতটা সম্ভব বুঝে পড়ুন।

★Grammar এর ডাইজেস্টের থেকে গুরুত্বপূর্ণ টপিকস গুলো দেখুন।

★Grammar এবং Vocabulary তে ভালো করতে হলে দীর্ঘদিনের প্র্যাকটিস প্রয়োজন।

★Grammar এর জন্যে প্রতিদিন অনুশীলন করুন। ★ইংরেজি অংশে অনুমান করে উত্তর না করাই ভালো।

সহায়ক গ্রন্থ :

★ABC of English Literature

★Common Mistakes in English –TJ Fitikides

★Digest or Any Grammar book

#বাংলাদেশ_এবং_আন্তর্জাতিক :৫০

______________________________

★ বাংলাদেশ অংশের জন্য বাংলাদেশের ইতিহাস,ঐতিহ্য,মুক্তিযুদ্ধ,বিভিন্ন আন্দোলন, গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিত্ব, প্রাচীন স্থাপত্যে বেশি জোর দিন।

★সংবিধানের সূচি থেকে গুরুত্বপূর্ণ ধারা গুলো দেখুন। সূচিপত্র দেখলেই হবে। তবে বিস্তারিত পড়লে রিটেন এবং ভাইভাই কাজে আসবে।

★নিয়মিত একটা বাংলা পত্রিকার প্রথম ও শেষ পাতা, সম্পাদকীয় ও মতামত,বিদেশ পাতা, বাণিজ্য এবং প্রযুক্তি পাতাটা নোট করে করে পড়ুন। এতে বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ে ভাল প্রস্তুতি হয়ে যাবে আপডেট সহ। এক বছরের বেশি সময় এই নিয়ম ধরে রাখতে পারলে আপনি প্রিলিতে ৫০ এবং রিটেনের ৩০০ নম্বরের মধ্যে ভাল স্কোর ক্যারি করতে পারবেন।

★পত্রিকার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক গুরুত্বপূর্ণ সংগঠন এবং বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানসমূহের সম্পর্কে ইন্টারনেট থেকে জেনে নিন।

★কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স থেকে একসাথে না পড়ে, ডেইলি পত্রিকা থেকে নিজে নোট করলে মনেও থাকে, নির্ভুল ও হয়।

★মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে যত পারুন জানুন।

★সিলেবাস ধরে ধরে প্রতিটা টপিকস নিয়ে পড়ুন।

সহায়ক গ্রন্থ :

★দৈনিক পত্রিকা

★আন্তর্জাতিক সম্পর্ক–ওবায়েদ ও আরেফীন

★বাংলাদেশ স্টাডিজ _ওবায়েদ, হোসনেআরা ডালিয়া ও আরেফীন

★ডাইজেস্ট

★উইকিপিডিয়া ও বাংলাপিডিয়া

★বাংলাদেশ সংবিধান

★মাধ্যমিক ইতিহাস

★মাধ্যমিক বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়

আমি বাংলা ও ইংরেজি শব্দভান্ডার বাড়াতে বলেছিলাম।অনেকেই কোন বইয়ের নাম সাজেস্ট করতে বলেছেন। এক্ষেত্রে আমি করতাম কি,

ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা থেকে ২/৩ টা নতুন শব্দ নিতাম। তারপর ফোনের ডিকশনারি থেকে ঐ শব্দের বাংলা এবং ইংরেজি কয়েকটা করে প্রতিশব্দ এবং বিপরীত শব্দ লিখে লিখে শিখতাম। এবং আমি এটা এখনো করি। এতে আপনার শব্দ ভাণ্ডার বাড়ার পাশাপাশি অনুবাদেও কাজে আসবে। ইংরেজি পত্রিকার পরিবর্তে ডাইজেস্টের Vocabulary Part থেকেও শব্দ চয়ন করতে পারবেন। অনলাইন ডিকশনারিতে উচ্চারণও শুদ্ধ করতে পারবেন।

উদাহারণ দিচ্ছি,

মনে করুন আজ শিখব ‘ Mitigate ‘

শব্দটি।এটি Verb.

বাংলা প্রতিশব্দ:

প্রশমিত করা,উপশম করা, সহনীয় করা,শান্ত করা, নির্বাপণ করা,লাঘু করা, তীব্রতর হ্রাস করা,নিরসন করা ইত্যাদি।

ইংরেজি প্রতিশব্দ :

Soothe, Appease, Ease, Put down,Relieve, Alleviate, Allay,Pacify,Becalm,Assuage, Put out, Extinguish, Moderate, Lighten, Water down,Remove, Refute, Conceal,Terminate etc.

Antonym :

Agitate,Excite, Swing, Stir,Fire up,Irritate,Annoy,Offend, Mortify,Perturb, Resent,Disturb,Vex etc.

এবার আসি, অন্যান্য বিষয়ের আলোচনায়।

#গাণিতিক_যুক্তি_মানসিক_দক্ষতা : (১৫+১৫)

______________________________________________

গণিত নিয়ে বেশির ভাগই খুব চিন্তায় আছেন। যারা গনিতে খুব দুর্বল, তাদেরকে বলছি খুব চিন্তিত হওয়ার কিছুই নেই। মোটামুটি যা পারেন, তা দিয়েও এ অংশে অনেক উত্তর করে আসা সম্ভব। ১৫ তে অন্তত ৫/৭ টার উত্তর পারাই যায়। তাই না পারলে অন্য সাবজেক্টে জোর দিন। তবে ধৈর্য সহ অনুশীলন করলে ভয় কেটে যাবে।

★প্রথমেই ৮ম এবং ৯ম -১০ ম শ্রেণির বোর্ড বই দুটো উদাহারণ সহ করুন। এ দুটো বই ভালো করে করলে মোটামুটি রিটেন ও কাভার হয়ে যাবে।

★অংক করার সময় যে গুলো শুদ্ধি পরীক্ষার সাহায্যে করা যায়, সে গুলো পুরো করতে হয়না।

★আগের বি সি এসের অংক গুলো করলেও একটা ভালো দক্ষতা অর্জিত হয়।

★ শর্টকাট ম্যাথড আমার ভালো লাগতো না বলে, রাফে প্রায় ফুল ম্যাথটাই করতাম।

★মানসিক দক্ষতার জন্য কমন সেন্স আর অন্যান্য বিষয়ের প্রস্তুতিই অনেকটা এনাফ। এতে ১৫/১৫ উত্তর করতে যাওয়াটা বোকামি।

★ এরপরও সেইফ জোনে থাকার জন্য মানসিক দক্ষতার রিটেন গাইড থেকে আগের প্রশ্ন গুলো সলভ করুন।

আমি মানসিক দক্ষতার জন্য আলাদা প্রস্তুতি নেইনি। তবে আগের প্রশ্নের সমাধান গুলো দেখেছিলাম।

#ভূগোল_ (বাংলাদেশ ও বিশ্ব),পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা :১০

_______________________________________________

★প্রথমেই বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন।

★বাংলাদেশের জলবায়ু ও সাম্প্রতিক জলবায়ু পরিবর্তনের তথ্য সমূহ জানুন।

★প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে কাজ করে এমন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা সমূহ সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত কিন্তু স্বচ্ছ ধারণা নিয়ে নিন। এদের আপডেট রিপোর্ট সমূহ দেখুন।(যেমন :কেয়ার, জার্মান ওয়াচ,নেচার সাময়িকী, দ্য সায়েন্স সাময়িকী, IPCC,UNEP etc)

★ইন্টারনেটে সহজেই এ সংক্রান্ত তথ্য পাবেন।

★মাধ্যমিক ভুগোল বইটি মনোযোগ দিয়ে শেষ করুন।

সহায়ক গ্রন্থ :

★মাধ্যমিক ভূগোল

★মাধ্যমিক সামাজিক বিজ্ঞান (পুরানোটা)

★বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় (৯ম-১০ম) ★ডাইজেস্ট

#সাধারণ_বিজ্ঞান_কম্পিউটার_ও_তথ্য_প্রযুক্তি :—(১৫+১৫)

_____________________________________________

★প্রথমেই নবম -দশম শ্রেণির নতুন সাধারণ বিজ্ঞান বইটা ভালো করে পড়ে ফেলুন।

★এরপর আগের বি সি এসের সব প্রশ্নের উত্তর দেখুন।

★কম্পিউটার ও প্রযুক্তির জন্য ইজি কম্পিউটার বইটা শেষ করুন।

★বি সি এস ছাড়া পি এস সির অন্যান্য পরীক্ষায় আসা কম্পিউটার ও প্রযুক্তির প্রশ্নগুলোর উত্তর শিখে নিন।

★৯ম-১০ম শ্রেণির পদার্থ বিজ্ঞান বইয়ের শেষের কয়েকটা অধ্যায় পড়ে নিন।

★পেপারের প্রযুক্তি পাতার নোটও কাজে আসবে।

সহায়ক গ্রন্থ :

★সাধারণ বিজ্ঞান (৯ম-১০ম) ★পদার্থ বিজ্ঞান (৯ম-১০ম)

★ইজি কম্পিউটার

#নৈতিকতা_মূল্যবোধ_ও_সুশাসন :১০

____________________________________

★এ অংশে মনে হবে সবই সঠিক। তাই বৃত্ত ভরাট করতে সাবধান।

★নৈতিকতার জন্য পৌরনীতি বইটা পড়ুন।

★নতুন ডাইজেস্ট থেকে পড়ে নিন।

★সুশাসন সম্পর্কে জানতে ইন্টারনেট থেকে সহায়তা নিন।

সহায়ক গ্রন্থ:

★ পৌরনীতি ১ম পত্র (১১শ-১২শ)– প্র.মো.মোজাম্মেল হক

★পৌরনীতি –এস এস সি (ওপেন স্কুল)

★ প্রফেসরস গাইড

বি সি এস টাই জীবনের সবকিছু নয়। এরপরও যাদের স্বপ্ন এটি, তারা চেষ্টা করতে থাকুন। প্রিলিটা শুধু বাছাই পরীক্ষা। চেষ্টার সাথে ভাগ্যের মিল হলেই ইয়েস কার্ড পাবেন। আর তকদীর কেবল দোয়া আর কর্মই বদলাতে পারে। ভালো কর্মের প্রতিদান কখনই খারাপ হয় না।

শুভ কামনায় –

তাছলিমা শিরিন

বিসিএস প্রশাসন