/

জাতীয়করণ শিক্ষকদের ক্যাডারে অন্তর্ভুক্ত করলে আবারও আন্দোলন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিতঃ ৮:১৮ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ২৯, ২০১৮

জাতীয়করণ হওয়া কলেজ শিক্ষকদের শিক্ষা ক্যাডারে অন্তর্ভুক্ত হওয়াকে কোনোভাবেই মেনে নেবেন না শিক্ষা ক্যাডাররা। প্রয়োজনে তারা আবারও আন্দোলনে নামবেন। একই সঙ্গে আত্তীকরণ নীতিমালা পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির নেতারা।

রোববার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) সংগঠনটির আয়োজনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের মহাসচিব শাহিদুল খবির চৌধুরী বলেন, সরকারের ২৭টি ক্যাডারের মধ্যে অন্যতম বৃহৎ হওয়া সত্ত্বেও দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে নানা অনিয়ম বঞ্চনায় শিকার হয়ে আসছেন শিক্ষা ক্যাডারের ১৫ হাজারের অধিক শিক্ষক কর্মকর্তা। বর্তমানে সরকারের জাতীয়করণ হওয়া শিক্ষকদের শিক্ষা ক্যাডারে অন্তভুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এমন বিধান রেখেই আত্তীকৃত নীতিমালা তৈরি করা হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি।

তিনি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে এর প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। আমাদের যৌক্তিক দাবিকে আমলে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেন। তার ভিত্তিতে শিক্ষা ক্যাডারে কোনো বিধিবহির্ভূত ক্যাডারভুক্তি হবে না এবং দ্রুতই এর একটি স্থায়ী সমাধানের আশ্বাস দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। অথচ আত্তীকরণ নীতিমালায় নন-ক্যাডারভুক্তদের একটি বিশেষ পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যাডারভুক্ত হওয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে কোনো বিধিবহির্ভূত ক্যাডারভুক্তি মেনে নেয়া হবে না। সহসাই এ সমস্যার সমাধান না হলে আবারও শিক্ষা ক্যাডারের শিক্ষক-কর্মকর্তরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন।

সংগঠনের সভাপতি আইকে সেলিমুল্লাহ খোন্দকার বলেন, নন-ক্যাডার শিক্ষকদের ক্যাডারভুক্ত না করতে আমরা দীর্ঘদিন প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। সরকারের পক্ষ থেকে বারবার আমাদের দাবি মেনে নিলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, জাতীয়করণভুক্ত শিক্ষকরা শিক্ষা ক্যাডারে অন্তর্ভুক্তি হলে এতে শিক্ষা ক্যাডারের জন্য হুমকি দেখা দেবে। আমাদের মধ্যে নানা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। তাত্তীকৃত নীতিমালা পরিবর্তনের মাধ্যমে জাতীয়করণ শিক্ষকদের নন-ক্যাডারে রাখার আবেদন জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি কলেজের শিক্ষক, দফর-সংস্থার কর্মকর্তা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।